Updates :

        বেড়াতে গিয়ে মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

        চীনা সেনাপ্রধানের সাথে ফোনালাপ ফাঁস, তোপের মুখে মার্কিন জেনারেল

        সাংবাদিক-কলামিস্ট গোলাপ মুনীর আর নেই

        যুক্তরাজ্যের ‘কোভিড রেড লিস্ট’ থেকে সরছে বাংলাদেশের নাম

        কাবুলে ড্রোন হামলায় নিহতরা বেসামরিক, ক্ষমা চাইলেন মার্কিন জেনারেল

        করোনায় আক্রান্ত নিউসামের দুই সন্তান!

        ব্রেকিং: কেঁপে উঠলো লস এঞ্জেলেস, ৪ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্প

        টেকসই ভবিষ্যৎ নিশ্চিতে বিশ্ব নেতাদের কাছে শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব

        যুক্তরাজ্যের ‘রেড লিস্টমুক্ত’ বাংলাদেশ

        নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ: তদন্তে মিথ্যা বলার অভিযোগ ক্লিনটনপন্থী আইনজীবীর বিরুদ্ধে

        এক সাপের কারণে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন উত্তর ক্যারোলিনার হাজারো মানুষ!

        ইউএস-ম্যাক্সিকো সীমান্তে আবারো মানুষের ঢল, মানবতা সংকট

        ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানল: পুড়ে যাওয়ার শঙ্কায় বিশ্বের সবচেয়ে বড় গাছ

        কোভিড রিলিফ জালিয়াতি: প্রতারক দম্পতির খোঁজে এফবিআই

        নিজ মেয়েকে চলন্ত ড্রাই ক্লিনার মেশিনে ঢুকিয়ে দিলেন পিতা!

        অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসীদের পুনর্মিলনের নতুন আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে

        ই-কমার্সে প্রতারিতদের পাওনা সরকারকে দেওয়ার দাবি সংসদে

        ইভ্যালির সিইও রাসেল ও তার স্ত্রী আটক

        উইসকনসিনে চার বন্ধুকে গুলি করে হত্যা, লাশ মিললো ভ্যানে

        হ্যারিকেন আইডার বন্যায় নিখোঁজ বৃদ্ধের দেহ মিললো কুমিরের পেটে

একসময়ের কারাবন্দীরা এখন কাবুল কারাগারের নিরাপত্তার দায়িত্বে

একসময়ের কারাবন্দীরা এখন কাবুল কারাগারের নিরাপত্তার দায়িত্বে

একসময় কাবুলের প্রধান কারাগার ছিল হাজারো তালেবান বন্দী আটক রাখার স্থান। মর্কিন সেনা ও তাদের মদদপুষ্ট আফগান সেনাদের হাতে গ্রেফতার তালেবান সদস্যদের গাদাগাদি করে এ কারাগারে রাখা হতো। সোমবার তালেবান কর্তৃপক্ষের এক কমান্ডার ওই কাবুল কারাগারের খালি হল ও সেলগুলোতে পায়চারি করছিলেন। তিনি তার সহকর্মী বন্ধুদের দেখাচ্ছিলেন যে কাবুল কারাগারের কোন সেলে তিনি বন্দী ছিলেন।

মাসখানেক আগে তালেবান কর্তৃপক্ষ খুব দ্রুতগতিতে আফগানিস্তান ও রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর মার্কিন ও পশ্চিমা মদদপুষ্ট আফগান সরকারের পতন হয়। ২০ বছর যুদ্ধ করে তালেবান কর্তৃপক্ষ এ সাফল্য অর্জন করে।

আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর তালেবান সদস্যরা এখন কাবুলের প্রধান কারাগারটিকে নিয়ন্ত্রণ করছে। এ কারাগারটি পুল-ই-চরখি নামে পরিচিত। কাবুলের পূর্বাংশে অবস্থিত এ কারাগারটি বিশাল আকারের। কাবুল শহর দখল করার পর তালেবান কর্তৃপক্ষ এখানকার প্রধান কারাগারের সকল বন্দীকে মুক্ত করে দেয়। এ সময় কারাগারে দায়িত্বরত সরকারি কারারক্ষীরা পালিয়ে যান। এখন বেশ কয়েকজন তালেবান যোদ্ধারা এ কারাগারটি পরিচালনা করছেন, যদিও কিছু দিন আগে তালেবান যোদ্ধারাই এখানে বন্দী হিসেবে ছিলেন।

কাবুল কারাগারের সাবেক বন্দী ওই তালেবান কমান্ডার তার পরিচয় প্রকাশে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তিনি তার বন্ধুদের নিয়ে এ বিশাল কারাগারটি ঘুরে দেখছিলেন। তিনি বলেন, ১০ বছর আগে তিনি এ ‘পুল-ই-চরখি’ কারাগারে আটক ছিলেন। তাকে আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলের কুনার প্রদেশ থেকে আটক করে এ কারাগারে নিয়ে আসা হয়েছিল। এ সময় তার হাত, পা ও চোখ বেঁধে রাখা হতো।

তিনি বলেন, কারাগারে তালেবান ও অন্যান্য বন্দীদের অত্যাচার ও নিপীড়ন করা হতো। আমি মুক্ত হওয়ার আগে এ কারাগারে ১৪ মাসের জন্য বন্দী ছিলাম। এ কারাগারে বন্দী থাকার দিনগুলো ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ও কালো অধ্যায়। কিন্তু, (কাবুল জয়ের পর) এখন আমার সবচেয়ে আনন্দের সময়। এখন আমি মুক্ত, এখন এ কারাগারে আসতে আমার কোনো ভয় করে না।

আফগানিস্তানে সোভিয়েত মদদপুষ্ট সরকারের শাসনামলে নির্মিত ‘পুল-ই-চরখি’ কারাগার ছিল খুবই কুখ্যাত এক স্থান। অনেক সহিংসতা, হত্যা ও অত্যাচারের ইতিহাস জড়িয়ে আছে এ কারাগারের সাথে। এখানে বহু গণকবর ও টর্চার সেল আছে। মার্কিন মদদপুষ্ট সরকারের আমলে এ কারাগারের অবস্থা ছিল খুবই ভয়ঙ্কর। এখানে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার বন্দীকে রাখার ব্যবস্থা থাকলেও এখানে ১০ হাজার বন্দীকে আটক করে রাখা হতো।


এখন যে সকল তালেবান যোদ্ধারা এ ‘পুল-ই-চরখি’ কারাগার পরিচালনা করছেন। তাদের অনেকেই আগে এ কারাগারে আটক ছিলেন। অপরদিকে এ কারগারের সাবেক সরকারি কারারক্ষীরা অনেক আগেই পালিয়েছেন, তারা আর ফিরে আসার মতো সাহস করেননি। তাদের ভয় তালেবানরা তাদের ওপর প্রতিশোধ নিবে।

 

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

[এলএ বাংলাটাইমসের সব নিউজ আরও সহজভাবে পেতে ‘প্লে-স্টোর’ অথবা ‘আই স্টোর’ থেকে ডাউনলোড করুন আমাদের মোবাইল এপ।]

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত