Updates :

        ভারত থেকে বাংলাদেশে উপহার আসছে ২০ লাখ ডোজ করোনার টিকা

        জাতির ক্রান্তিকালে জিয়া ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করেন: ফখরুল

        ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণে ধেয়ে আসছে ঝড়ো হাওয়া

        সিলেটে কথিত স্ত্রী-ইয়াবাসহ দরোগা রোকন গ্রেফতার

        লস এঞ্জেলেসে নীতি পরিবর্তন: বয়স্করা টিকা পাবেন শীঘ্রই

        ‘নোয়াখালীর নতুন পাগল’ কাদের মির্জাকে পাবনায় পাঠানোর কথা বললেন নিক্সন চৌধুরী

        বাইডেন প্রশাসনে বাংলাদেশি জাইন সিদ্দিকী

        অভিনেতা মজিবুর রহমান দিলু আর নেই

        অভিবাসীদের বৈধতা দিতে ৮ বছর মেয়াদী পরিকল্পনা নিচ্ছেন বাইডেন

        সৌদির পর এবার পাকিস্তানকে চাপ দিচ্ছে আমিরাত

        ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনার ভ্যারিয়েন্ট 'L452R' এ আক্রান্ত রোগী বাড়ছে

        লস এঞ্জেলেসে চালু হচ্ছে আরো ৫ টিকাদান কেন্দ্র

        'রেডিও' হতে পারে সহিংসতা ও উস্কানির পন্থা: এফসিসি

        মডার্নার টিকায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া: ক্যালিফোর্নিয়ায় টিকাদান বন্ধ

        এলএ বাংলা টাইমস এর সিইও ফেসবুক বিচ্ছিন্ন

        চলে গেলেন ‘কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’র কিংবদন্তি প্রযোজক

        ভারতের অরুণাচল সীমান্তে নতুন গ্রাম তৈরি করেছে চীন

        বার্সেলোনার জার্সিতে মেসির প্রথম লাল কার্ড

        ৭ মুসলিম দেশের নিষেধাজ্ঞা বাতিল করছেন বাইডেন

        করোনায় দেশে আরও ১৬ মৃত্যু, শনাক্ত ৬৯৭

এমসি কলেজে ধর্ষণ: ডিএনএ টেস্টে ৮ আসামিরই জড়িত থাকার প্রমাণ

এমসি কলেজে ধর্ষণ: ডিএনএ টেস্টে ৮ আসামিরই জড়িত থাকার প্রমাণ

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে এক গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার আট আসামির প্রত্যেকেরই জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে ডিএনএ টেস্টে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট মহানগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বিএম আশরাফ উল্যাহ জানিয়েছেন, রোববার ডিএনএ প্রতিবেদন পুলিশের হাতে এসে পৌঁছেছে। ডিএনএ টেস্ট নানাভাবে করা হয়েছে। ডিএনএ টেস্টে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার আট আসামির প্রত্যেকেরই কোন না কোনভাবে জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে।

তিনি জানান, ডিএনএ প্রতিবেদন না আসায় মামলার অভিযোগপত্র এতদিন দেওয়া সম্ভব হয়নি। ডিএনএ প্রতিবেদন হাতে আসায় দ্রুত চার্জশিট দেওয়া হবে। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে নববিবাহিতা স্ত্রীকে নিয়ে গাড়িতে করে এমসি কলেজে বেড়াতে গিয়েছিলেন তার স্বামী। সেখানে যাওয়ার পর অভিযুক্তরা তাদের জোর করে কলেজ ছাত্রাবাসে নিয়ে আসে। করোনার কারণে বন্ধ থাকা ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করা হয়। ওই রাতেই ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে মহানগরের শাহপরান থানায় মামলা করেন।  

মামলার পর বিভিন্ন স্থান থেকে এজাহারভুক্ত আসামি সাইফুর রহমান, তারেকুল ইসলাম ওরফে তারেক, শাহ মাহবুবুর রহমান ওরফে রনি, অর্জুন লস্কর, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান ওরফে মাসুম এবং সন্দেহভাজন আসামি মিসবাউর রহমান ওরফে রাজন ও আইনুদ্দিন নামের আরও দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

এর আগে গ্রেপ্তারকৃত আট আসামিকে পর্যায়ক্রমে পাঁচদিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। রিমান্ড শেষে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন তারা।

 

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এস

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত