Updates :

        ৯ মাসে সরকারের ঋণ বেড়েছে ১ লাখ কোটি টাকার উপরে

        উত্তরায় গার্ডার পড়ে নিহতের ঘটনায় মামলা

        বিশ্ব ফুটবলে ভারত নিষিদ্ধ!

        অবশেষে শ্রীলঙ্কার বন্দরে চীনের জাহাজ

        বঙ্গবন্ধু ফাঊন্ডেশন গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসি শাখার উদ্যোগে শোক দিবস পালিত

        মার্কিনিদের তাইওয়ান সফরে ফের উত্তেজনা, যুদ্ধের মহড়া দিচ্ছে চীন

        ঢাকায় ফ্লাইওভারের গার্ডার পড়ে প্রাইভেটকারের ৫ যাত্রী নিহত

        সান ফ্রান্সিসকো সিলিকন ভ্যালি আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শোক দিবস পালন

        ২০২৩ সালে হিন্দু রাষ্ট্র ঘোষণা! রাজধানী কাশী, ভোটাধিকার থাকবে কেবল হিন্দুদের

        স্পেনে দাবানল, শহর ছেড়ে পালাচ্ছে মানুষ

        আজ জাতীয় শোক দিবস

        যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিনকার্ডের আবেদন জমে আছে ৮৬ লাখ

        সালমান রুশদির ওপর হামলাকারী যুবকের পরিচয় প্রকাশ

        পেনসিলভেনিয়ায় গাড়ি হামলায় মৃত ১, আহত ১৭

        ছাত্রকে বিয়ে করে ভাইরাল সেই শিক্ষিকার আত্মহত্যা

        আন্দোলনকারীদের যেন গ্রেফতার করা না হয়: প্রধানমন্ত্রী

        মিশরে চার্চে আগুন, নিহত ৪১

        নতুন প্রজন্মের বঙ্গবন্ধু ভাবনা

        কাবুলে আত্মঘাতী হামলায় রহিমুল্লাহ হাক্কানি নিহত

        যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো রাডার সিস্টেম ধ্বংসের দাবি রাশিয়ার

আবারও মিথ্যা বলে ডেপের আইনজীবীদের হাতে ধরা পড়লেন অ্যাম্বার!

আবারও মিথ্যা বলে ডেপের আইনজীবীদের হাতে ধরা পড়লেন অ্যাম্বার!

মানহানি মামলা শুরুর পর থেকেই আলোচনায় জনি ডেপ-অ্যাম্বার হার্ড। মামলার রায় হওয়ার পর ডেপভক্তরা খুশি হলেও বিচারকদের রায়ে অসন্তুষ্ট 'অ্যাকুয়াম্যান' অভিনেত্রী। রায়ের পর থেকেই হার্ড ও তার আইনজীবীরা একের পর এক সন্দেহ-অভিযোগের তীর ছুঁড়েছেন বিচারকদের দিকে। তবে এবার শোনা যাচ্ছে, জনি ডেপের আইনি দলের হাতে অ্যাম্বার হার্ডের আরও একটি মিথ্যা ধরা পড়েছে!

কাউন্সিলে ডেপের প্রথম চেয়ার ছিলেন যিনি, সেই আইনজীবি বেঞ্জামিন চিউ অ্যাম্বার হার্ডের বর্তমান দাবিদাওয়ার মধ্যে ফাঁকফোঁকড় খুঁজে পেয়েছেন। হার্ড দাবি করেছেন, রায় ঘোষণার দিন জুরিদের মধ্যে ১৫ নম্বর জুরি ছিলেন নকল! কিন্তু বেঞ্জামিন চিউর ভাষ্যে, এমনটা হওয়া অসম্ভব।

ইয়াহু সূত্র জানিয়েছে, আদালতে হাজির করা চিঠিতে বলা হয়েছে, 'অ্যাম্বার হার্ড সরল মনেই একবার  বলে ফেলেছেন যে তিনি মামলার শুনানির শুরু থেকেই ১৫ নম্বর জুরি সম্পর্কে সন্দিহান ছিলেন, কারণ ওই জুরির জন্ম ১৯৪৫ সালের পরে।"

আরও বলা হয়, "সে কারণেই অ্যাম্বার হার্ড স্বীকার করেছেন যে শুনানি আরম্ভ হওয়ার আগেও, এবং ছয় সপ্তাহব্যাপী শুনানির সময় যখন অন্তত দুটি বিকল্প বের করার সুযোগ ছিল, তখনো তার হাতে জুরি-সংক্রান্ত এই অভিযোগ তদন্ত করার বা নতুন ফ্যাক্ট আবিষ্কার করার যথেষ্ট সময় ছিল।

ফলে স্পষ্টতই, এতদিন যাবত যখন অ্যাম্বার হার্ড এ বিষয়গুলো নিয়ে তদন্ত করেননি, তাই এখন এ ব্যাপারে তদন্ত করার অধিকার তার নেই এবং মামলার রায়ে ভুল হয়েছে দাবি করার সুযোগও নেই।"আবারও মিথ্যা বলে ডেপের আইনজীবীদের হাতে ধরা পড়লেন অ্যাম্বার!

 

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/ই

[এলএ বাংলাটাইমসের সব নিউজ আরও সহজভাবে পেতে ‘প্লে-স্টোর’ অথবা ‘আই স্টোর’ থেকে ডাউনলোড করুন আমাদের মোবাইল এপ।]

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত