Updates :

        টিকা নিন, সুস্থ থাকুন: ফাউসি

        আজ বিশ্ব এইডস দিবস: বিশ্বে প্রতিদিন সাড়ে ৫ হাজার মানুষ এইডসে আক্রান্ত হয়

        এলো রক্তঝরা বিজয়ের মাস

        'ঐতিহাসিক' মন্ত্রিসভা গড়ছেন বাইডেন

        যুক্তরাষ্ট্র পেতে পারে প্রথম নারী অর্থমন্ত্রী

        অবৈধ অভিবাসীদের গণনা জটিলতা, সুপ্রিম কোর্টে শুনানি

        টিকা অনুমোদনের জন্য আবেদন করছে মডার্না

        পা ভাঙ্গলেন বাইডেন!

        করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে শ্রীলঙ্কায় কারাগারে সংঘর্ষে নিহত ৬

        মাস্ক না পরলে জেলেও যেতে হতে পারে বাংলাদেশে

        এমসি কলেজে ধর্ষণ: ডিএনএ টেস্টে ৮ আসামিরই জড়িত থাকার প্রমাণ

        জিয়াউর রহমানের নামে থাকা বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করায় বিএনপির নিন্দা

        সৃষ্টিকে ভালোবাসুন, ভালো লাগার মতো নিজেকে যোগ্য করে তুলুন

        দেশে মাশরুমের মতো বেসরকারি মেডিকেল কলেজ গড়ে উঠেছে

        ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরের বিনামূল্যে চোখের চিকিৎসা

        চাঁদপুর প্রতিদিনের লেখক ও গুনীজন সম্মাননা পেলেন ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ প্রধান আনোয়ার হাবিব কাজল

        এবার কলোরাডোর গভর্নর করোনায় আক্রান্ত

        নির্বাচনে কারচুপির মামলা নিয়ে সংশয়ে ট্রাম্প

        ট্রাম্পকে দেওয়া অনুদান ফেরত চান সমর্থক!

        পেনসিলভেনিয়ায় আবারো হতাশ ট্রাম্প শিবির

আরেকটি অঞ্চল ফিরে পেয়ে আনন্দে ভাসছে আজারবাইজান

আরেকটি অঞ্চল ফিরে পেয়ে আনন্দে ভাসছে আজারবাইজান

দীর্ঘ ২৭ বছর পর ‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌'অগদাম' অঞ্চল ফিরে পাওয়ায় আনন্দে ভাসছে আজারবাইজান। আর্মেনিয়ার দখল থেকে মুক্ত 'অগদাম' অঞ্চলে আজ শুক্রবার আজারবাইজানের সেনাবাহিনী প্রবেশ করেছে। তারা আনুষ্ঠানিকভাবে ওই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গণমাধ্যম বিভাগের প্রধান লায়লা আব্দুল্লাহ আভা এক টুইটার বার্তায় লিখেছেন, "২৭ বছরের অনুশোচনার অবসান হয়েছে। আমাদের অপরূপ ভূখণ্ডটি আবারও মায়ের কোলে ফিরে এসেছে।"

নিজের ভূখণ্ড আবারও ফিরে পাওয়ায় আজারবাইজানের জনগণও বেশ খুশি।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ২৭ বছর আগে যেসব আজারি ভিটেমাটি ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল এখন তারা ফিরে আসতে পারবে। তাদের ফিরে আসার সুযোগ তৈরি হয়েছে। 'অগদাম' এলাকাটি রাজধানী বাকু থেকে ৩৭৮ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত। এটি নাগার্নো-কারাবাখের একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা হিসেবে পরিচিত। ১৯৯৩ সালে এই জেলাটিকে দখলে নিয়েছিল আর্মেনিয়া।

দীর্ঘ কয়েক সপ্তাহের যুদ্ধের পর ১০ নভেম্বর রাশিয়ার তত্ত্বাবধানে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান নাগার্নো-কারাবাখে যুদ্ধ বন্ধে সম্মত হয়েছে। চুক্তির বাস্তবায়ন তদারকি করতে এরই মধ্যে নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলে রুশ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

এই দুই দেশের স্বাক্ষরিত চুক্তিতে বলা হয়েছে, আর্মেনিয়া দখলীকৃত 'অগদাম', লাচিন ও কালবাজার এলাকা আজারবাইজানের কাছে হস্তান্তর করবে।

চুক্তি অনুযায়ী কারাবাখ অঞ্চলের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য আজারবাইজানের লাচিনকে করিডোর হিসেবে ব্যবহারের অনুমতি পাবে আর্মেনিয়া। তবে এর বিনিময়ে আর্মেনিয়াও আজারবাইজান ও নাখচিভান প্রজাতন্ত্রের মধ্যে পণ্য আনা-নেয়ার জন্য করিডোর সুবিধা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

 

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

শেয়ার করুন