আপডেট :

        অবসরে রোমান সানা

        বিদায় নিচ্ছেন ইলিয়াস কাঞ্চন

        বিমান থেকে গাজায় মানবিক সহায়তা যুক্তরাষ্ট্রের

        বিশ্ব বন্যপ্রাণী দিবস

        আবদুল কাদের জিলানী (র:) এর মাজার জিয়ারতের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ

        মিসরে পৌঁছেছে হামাস

        কারাগারে ওসমানীর সাদেক

        দ্রুত বিচার আইন স্থায়ী করতে সংসদে বিল পাস

        বিজেপির প্রার্থীর তালিকা প্রকাশ

        শাবি প্রেসক্লাবের নবগঠিত কমিটির অভিষেক

        অনির্বাচিত কেউ সংসদে আসতে পারে না: সংসদ স্পিকার

        পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ

        সময়ের আলোর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

        এবারের নির্বাচন সবচেয়ে অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

        এই বাংলাদেশির জন্য ২০ হাজার ডলার পুরস্কার ঘোষণা মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার

        কৃষি বার্ষিক গবেষণা পর্যালোচনা কর্মশালা

        বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ও আহতদের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সমবেদনা

        মন্ত্রীর সংবর্ধনায় দু’পক্ষের উত্তেজনা, চেয়ার ভাঙচুর

        যুক্তরাজ্যে গেলেন রাষ্ট্রপতি

        বাসচাপায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

রুশ বাহিনীতে আরো ১ লাখ ৭০ হাজার সেনা

রুশ বাহিনীতে আরো ১ লাখ ৭০ হাজার সেনা

রাশিয়ার সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী করতে শুক্রবার অতিরিক্ত ১ লাখ ৭০ হাজার সেনা বাড়িয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এ নিয়ে দেশটির সেনাবাহিনীতে মোট সেনা সদস্যের সংখ্যা দাঁড়াল ২২ লাখের বেশি। শনিবার এক প্রতিবেদনে এই খবর প্রকাশ করেছে তুর্কি সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি।

 

ক্রেমলিনের ওয়েবসাইট অনুসারে, রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর ১৩ লাখ ২০ হাজার সেনাসহ ২২ লাখ ৯ হাজার ১৩০ কর্মকর্তার একটি ডিক্রিতে স্বাক্ষর করেছেন পুতিন। স্বাক্ষর হওয়ার দিন থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়েছে। এর আগে, গত জানুয়ারি থেকে কার্যকর একটি ডিক্রিতে স্বাক্ষর করেন পুতিন, যেটিতে দেশটির সেনাবাহিনীতে ১১ লাখ ৫০ হাজার ৬২৮ সেনাসহ ২০ লাখ ৩৯ হাজার ৭৫৮ কর্মকর্তা উল্লেখ ছিল। পূর্ববর্তী ডিক্রির তুলনায় এ ডিক্রিতে শুধু সেনা সংখ্যাই বেড়েছে ১ লাখ ৬৯ হাজার ৩৭২ জন।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় স্পষ্ট করে জানিয়েছে, দেশটির সেনাবাহিনীতে আনুমানিক ১ লাখ ৭০ হাজার সেনা বাড়ানো হলেও তাদের নিয়োগ দেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই। দেশটিতে সেনা সদস্য বাড়ানোর জন্য ইউক্রেনে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ এবং ন্যাটোর সম্প্রসারণের উচ্চ হুমকিকে দায়ী করেছে রাশিয়া। তারা বলছে, তাদেরকে সশস্ত্র যুদ্ধে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়নি। সশস্ত্র বাহিনীর বৃদ্ধিকে ন্যাটোর আক্রমণাত্মক কর্মকাণ্ডের উপযুক্ত প্রতিক্রিয়া হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

 এলএবাংলাটাইমস/আইটিএলএস

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত