Updates :

        ৩ হাজার ডলার চাইল্ড ট্যাক্স ক্রেডিট হাউজে অনুমোদন

        অনুমোদন পেলো জনসন এন্ড জনসনের এক ডোজের টিকা

        সৌদি আরব নিয়ে বাইডেনের ঘোষণা সোমবার

        সহযোগী হোক জীবনসঙ্গীটি

        ভারতে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ, দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

        পপগুরু আজম খানের জন্মদিন

        মঙ্গল থেকে যে কম্পিউটার ছবি পাঠাচ্ছে

        পরিণীতির প্রথম 'ক্রাশ' সাইফ আলি খান

        দেশে পঞ্চম ধাপে ২৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে

        নিউ ইয়র্কে এশীয় বংশোদ্ভূতদের ওপর হামলা বাড়ছেই

        রিয়াদে ব্যাপক বিস্ফোরণের শব্দ

        লেখক মুশতাকের মৃত্যুতে ক্ষোভ: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি টিআইবির

        রিয়ালকে টপকে গেল বার্সা

        সেনাবিরোধী বক্তব্য দেওয়ায় মিয়ানমারের জাতিসংঘ দূত বরখাস্ত

        ইনল্যান্ড এম্পায়ারের দিকে ঝুঁকছে লস এঞ্জেলেসবাসী

        লস এঞ্জেলেসে শিশুদের মধ্যে করোনাজনিত রোগ বাড়ছে

        শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে ৩০ মার্চ

        পাওয়া গেছে লেডি গাগার ছিনতাই হওয়া কুকুর

        বক্তব্য দিতে গিয়ে মঞ্চেই জাতীয় পার্টির নেতার মৃত্যু

        লস এঞ্জেলেসের শিক্ষা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা সংশ্লিষ্টরা টিকা পাচ্ছেন আগামী সপ্তাহে

স্ত্রীর সঙ্গে সংসার করার শর্তে ৫৪ স্বামীকে জেল থেকে মুক্তি

স্ত্রীর সঙ্গে সংসার করার শর্তে ৫৪ স্বামীকে জেল থেকে মুক্তি

স্বামী-স্ত্রীদের মধ্যে কলহ ও যৌতুকসহ বিভিন্ন নির্যাতনের ৬৫ টি মামলায় ৫৪ জন স্বামীকে তাদের স্ত্রীদের নিয়ে সংসার করার নির্দেশনা দিয়ে মুক্তি দিয়েছেন আদালত। অন্যদিকে একই অভিযোগে আরও ১১টি মামলায় ১১ জনকে দেড় বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
 
সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ রায় দেন সুনামগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জাকির হোসেন।

রায়ে যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলা থেকে ৫৪ জন স্বামী অব্যাহতি দিয়ে স্বাভাবিকভাবে সংসার করার সুযোগ দেন আদালত। মামলার হয়রানি ও সংসার এবং দম্পতিদের সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এই পদক্ষেপ নেয়া হয় বলে জানান আদালত।

আদালত সূত্রে জানা যায়, প্রথমে তাদের স্বামীদের ভাল হওয়ার জন্য সুযোগ দেওয়া হয়, পরে দুই পক্ষের মধ্যে আপস মিমাংসা করে আজ সোমবার দুপুরে ফুল ও চকলেট দিয়ে স্বামী স্ত্রীদের এক সাথে সংসার করার নির্দেশনা প্রদান করেন আদালত।  

অন্যদিকে আরও ১১টি পরিবার একিভূত করতে সক্ষম না হওয়ায় ও নির্যাতিত স্ত্রী  ও তাদের সাক্ষীরা স্বামীর বিরুদ্ধে স্বাক্ষী দেওয়া এবং তা প্রমানিত হওয়ায় ১১ জনকে দেড় বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন, নূরুল ইসলাম, মো.শামীম, নজরুল ইসলাম, শাহেদ চৌধুরী, রকিবুল ইসলাম, ইমরান আহমদ, আল-আমিন, মো.সোহেল মিয়া, আল-আমিন, মইন উদ্দিন, রিপন মিয়া।

স্বামীর বিরুদ্ধে ২০১৯ সালে নির্যাতন মামলা করেন দোয়ারাবাজার উপজেলার মামুনপুর গ্রামের মিনারা বেগম। তবে স্বামী তার ভুল বুঝতে পারায় ও আদালত পুনরায় সুযোগ দেওয়া তিনি খুশি। তিনি বলেন, আমি রায়ে খুশি, আদালত আমরার ভবিষ্যতের চিন্তা করিয়া আমরা দুইজনরে এক করিয়া দিসোইন আমরা খুশি।

তার স্বামী সমুজ আলী বলেন, আদালত আমারে সুযোগ দিসোইন সংসার করার লাগি আমরারে ফুল দিসোইন চকলেট দিসোইন আমরা আদালতের কথা মানিয়া চলমু সুখে শান্তিতে সংসার করুম।  

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি নান্টু রায় বলেন, এটি একটি যুগান্তকারি রায়। এর আগেও ৪৭ টি মামলার একই ভাবে দেন আদালত। এই রকম রায়ে আদালতে মামলা জট কমবে এবং মানুষ আদালতে ঘন ঘন হাজিরা দেয়া থেকে রক্ষা পাবে। এই রকম ভাবে দ্রুত মামলার রায় হলে বিচার প্রার্থী ও আইনজীবীদের জন্য ভাল দিক।

 

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এস

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত