যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ০২ Jun, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 09:27pm

|   লন্ডন - 04:27pm

|   নিউইয়র্ক - 11:27am

  সর্বশেষ :

  কারফিউ-আন্দোলন দুটোই চলছে ক্যালিফোর্নিয়ার বিভিন্ন শহরে   গঠনমূলক কিছু বলুন নয়তো মুখ বন্ধ রাখুন, ট্রাম্পকে পুলিশপ্রধান   করোনায় একদিনে গেল আরও ২২ প্রাণ, আক্রান্ত ৫৫ হাজার ৯৬৮   প্রতিবাদ, ভাঙচুর-লুণ্ঠন, লস এঞ্জেলেসে গ্রেফতার ২১০০   বিক্ষোভ মিছিলে নিউ ইয়র্কের মেয়রের মেয়ে   করোনার কারণে দেশে উপার্জন কমেছে ৭৪ শতাংশ পরিবারে: জরিপ   করোনা মোকাবেলায় দেশকে তিন ভাগে ভাগ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যা: মানব পাচারকারী চক্রের হোতা ঢাকায় গ্রেফতার   করোনায় বিশ্বব্যাপী একদিনে মৃত ২৯৪০, আক্রান্তও লাখের বেশি   আ.লীগ নেতা নাসিম করোনায় আক্রান্ত   হোয়াইট হাউজের সামনে বিক্ষোভ-আগুন, বাঙ্কারে লুকালেন ট্রাম্প   সান্তা মনিকায় লুটপাট, এখনো দেশজুড়ে বিক্ষোভ   ল্যুভেলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে প্রতিবাদকারী নিহত   লস এঞ্জেলেসে বন্দুক হামলায় ১ জনের মৃত্যু   করোনায় একদিনে গেল আরও ২৫ প্রাণ, আক্রান্ত ৫৪ হাজার ৯৯৬

CORONAVIRUS OUTBREAK

Los Angeles

55,968

Cases

2,384

Deaths

California

115,107

Cases

4,221

Deaths

USA

1,859,597

Cases

106,927

Deaths

স্বদেশ


করোনা মোকাবেলায় দেশকে তিন ভাগে ভাগ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বাংলাদেশে দিনকে দিন বেড়েই চলেছে। অদৃশ্য এই ভাইরাস মোকাবেলায় দুই মাসেরও বেশি সময় সারাদেশে সাধারণ ছুটি

২০২০-০৬-০১ ১৪:২৮:২১

লস এঞ্জেলেস


কারফিউ-আন্দোলন দুটোই চলছে ক্যালিফোর্নিয়ার বিভিন্ন শহরে

নিজস্ব প্রতিবেদক
জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর জের ধরে উত্তপ্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কারফিউ দিয়েও মানুষকে আন্দোলন থেকে নিবৃত্ত করা যাচ্ছে না। ক্যালিফোর্নিয়ার লস

২০২০-০৬-০২ ০৯:৪১:৫০


নিউইয়র্ক


করোনায় এনওয়াইপিডি কর্মকর্তা মুজিব চৌধুরীর মৃত্যু

ইউএনএ : নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট (ট্রাফিক এনফোর্সমেন্ট)-এর সেকশন কমান্ডার মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান চৌধুরী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া

বিস্তারিত

ইউরোপের খবর


ফ্রান্সে লকডাউন শিথিল

নিউজ ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় সোমবার থেকে ফ্রান্সে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে।তবে সব কিছু স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে আরও অনেক সময় লাগবে বলে

বিস্তারিত


চাকরীর খবর


পদবী প্রতিষ্ঠান আবেদনের শেষ তারিখ
Account Executive Dental Health Services - San Diego/Orange County, CA ২০১৫-০২-১৩
AIRPORT GUIDE 0845 City of Los Angeles Personnel Department ২০১৫-০২-১২

আর্কাইভ

খেলাধুলা

করোনায় মারা গেলেন এশিয়ান কারাতে ফেডারেশনের রেফারি

নিউজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চলে গেলেন ক্রীড়াঙ্গনের মেধাবী মুখ এশিয়ান কারাতে ফেডারেশনের রেফারি ও বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেসনের সদস্য হুমায়ুন কবীর জুয়েল (৫০)। আজ সকাল সাড়ে আটটায় গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন তিনি।

ঈদের দিন তিনি শ্বাসকষ্ট জনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তিনি সাউথ এশিয়ান কারাতে রেফারি কমিশনের কো- চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ল্ড কারাতে ফেডারেশনের লাইসেন্সধারী কোচ ছিলেন। তার স্ত্রী ও দুই সন্তান আমেরিকায় বসবাস করেন। রাজাবাজারের পৈত্রিক বাসায় হুমায়ুন কবির জুয়েল থাকতেন।

তার এই অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশনের সভাপতি ড. মোজাম্মেল হক খান ও সাধারণ সম্পাদক জনাব ক্য শৈ হ্লা (চেয়ারম্যান, বান্দরবান জেলা পরিষদ) গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এস

ইসলামী জীবন

২০৩০ সালে মুসলিমদের রাখতে হবে ৩৬ রোজা

নিউজ ডেস্ক : আগামী ২০৩০ সালে মুসমানদের ৩৬ দিন রোজা রাখতে হবে। এমনটি জানিয়েছেন সৌদি আরবের আল-কাসিম বিশ্ববিদ্যালয়ের জলবায়ু বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল-মুসনাদ।

এক টুইট বার্তায় তিনি বলেছেন এমন ঘটনা যা বারবার পুনরাবৃত্তি হয় না, মুসলমানরা ২০৩০ সালে ৩৬ দিন রোজা রাখবে।কারণ ২০৩০ সালের শুরুতে এবং শেষে অর্থাৎ দুইবার পবিত্র রমজান মাস আসবে। ১৪৫১ হিজরির রমজান শুরু হবে ২০৩০ সালের ৫ম জানুয়ারিতে এবং আশা করা হচ্ছে, এই পবিত্র মাসটি ৩০ দিনে পূর্ণ হবে।

এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে আল-কাসিম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আল মুসনাদ বলেছেন, এর কারণ হচ্ছে চন্দ্র বছর সৌরবর্ষের তুলনায় ১১ দিন কম হয়। অর্থাৎ সৌরবর্ষ ৩৬৫ দিন এবং চন্দ্র বছর ৩৫৪ দিন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আইএল

প্রবাসী কমিউনিটি

নিউজার্সিতে বাসায় থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে করোনা থেকে সুস্থ ছাত্রলীগনেতা

বিশ্বজিৎ দে বাবলু, নিউজার্সি থেকে : কোভিড নাইনটিনের দোহাই দিয়ে অভিবাসী দেশ আমেরিকায় অস্থায়ীভাবে সব ধরনের অভিবাসন স্থগিত করছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।আগামী  গত বুধবারএ বিষয়ে এক নির্বাহী আদেশ জারি করবেন তিনি। এদিকে লক ডাউন খুলে দেওয়া নিয়েও বিতর্ক চাঙ্গা। সব মিলিয়ে এক অস্থির দেশ স্বপ্নের আমেরিকা।অন্যদিকে আক্রান্ত ও মৃত্যুর দিক দিয়ে সমান তালে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে আমেরিকার পাশাপাশি দুটি রাজ্য নিউইয়র্ক ও  নিউজার্সি ।করোনা রোগী সামাল দিতে সেখানকার হাসপাতালগুলো রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে।

ঠিক সে সময় নিউজার্সিতে হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে নিজ বাসায় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সম্পুর্ণ সুস্থ হয়েছেন রাজু খান নামে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ।

নিউজার্সির প্যাটরসন সিটিতে বসবাসকারী  নিউজার্সি স্টেট ছাত্রলীগ নেতা ও নিউজার্সি ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার টেকনোলজি এন্ড মেডিকেল ইনফোরম্যাটিক্স ডিপার্টমোন্টের শেষবর্ষের ছাত্র রাজু খান কিভাবে করোনা সংক্রমিত হয়েছিলন সেটা তিনি বুঝতেই পারেন নাই।
রাজু জনান  ১৪-১৫দিন আগে জ্বর, সর্দি কাশি অনুভব করেন ,প্রথমে স্বাভাবিক সিজনাল জ্বর মনে করে ২ দিন বাসায় থাকার পর যখন  জ্বর কমেনি এবং জ্বরের সাথে প্রচণ্ড মাথাব্যথা শুরু হয় তখন, সে নিজে থেকে পেসাইক কাউন্টি ড্রাইভ ত্রো কোবিড ১৯ টেস্টিং সাইটে গিয়ে দীর্ঘ তিন ঘন্টা দাড়িয়ে থেকে করোনা টেস্টের জন্য নমুনা জমা দেন।জমা দেওয়া পর রাজুকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে দ্বায়িত্বে থাকা স্বাস্থকর্মীরা বলেন টেস্টের রেজাল্ট যদি পজিটিভ হয় তাহলে ৭২ঘন্টার ভিতরে থাকে জানানো হবে আর নেগেটিভ হলে রিপোর্ট আর দেয়া হবেনা ।

এরপর ঠিক ৭২ ঘন্টা পরে তাকে ফোন করে জানিয়ে দেওয়া হয় তার নমুনা পজিটিভ এবং বাসায় আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ নির্দেশ দেন এবং তার প্রাইমারী চিকিৎসক  ড. রেহেনা রব ডি এন পি এর সাথে যোগাযোগ করতে বলা হয়।আর  শ্বাস-প্রশ্বাস কষ্ট হলেই হাসপাতালে যেতে।

এরপর থেকে প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট টাইমে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চিকিৎসা নিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সাধারণ সর্দি জ্বর কাশির ওষুধ গ্রহন করে ১৪দিন আইসোলেশনে থেকে সম্পুর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেন।

করোনা মুক্ত হওয়ার পর রাজু জানায় করোনা পজিটিভ থাকলেও হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে নিজ বাসায় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী আইসোলেশনে থেকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থেকে সাধারণ প্রতিরোধের নিয়ম মেনে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেয়ে খুব সহজেই করোনা মুক্ত হওয়া যায়।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

লস এঞ্জেলেস

কারফিউ-আন্দোলন দুটোই চলছে ক্যালিফোর্নিয়ার বিভিন্ন শহরে

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর জের ধরে উত্তপ্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কারফিউ দিয়েও মানুষকে আন্দোলন থেকে নিবৃত্ত করা যাচ্ছে না। ক্যালিফোর্নিয়ার লস এঞ্জেলেস, ওকল্যান্ডসহ বিভিন্ন শহরে আন্দোলন সচল রয়েছে। বিচ্ছিন্নভাবে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে কোথাও কোথাও।

 রোববার লস এঞ্জেলেসে অন্তত ৭০০ জনকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি বেড়েছে হলিউড, ভ্যান নাউসসহ বিভিন্ন এলাকায়। কিছু কিছু স্থানে চলেছে ভাঙচুর, লুটপাট। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা বেশকিছু আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। তবে বেশিরভাগ আন্দোলনই ছিল শান্তিপূর্ণ। 

স্থানীয় এক ওষুধ দোকানি বলেন, তার দোকান ভেঙে অর্থ ও ওষুধ নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তিনি সিকিউরিটি ক্যামেরা দিয়ে দেখেছেন ১০ জন যুবক এই ঘটনায় জড়িত। তিনি জানান এখানে কিছুই করার নেই। তারা সরকার ও পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ।

এদিকে কারফিউ আইন লঙ্ঘন করায় ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যান্ডে ৪০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ৬৮০ ওয়ালনাট ক্রিকে প্রায় ১৫ হাজার মানুষ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে। তবে আন্দোলনকারীরা পুলিশের পাকড়াওতে পড়ে। ছোঁড়া হয় রাবার বুলেট। পুলিশের দাবি কিছু বিক্ষোভকারী গাড়ি ভাঙচুর করেছে।

দ্য আলামেদা কাউন্টি শেরিফ অফিস টুইটে জানিয়েছে ১০০ এরও বেশি মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এখন ঘরে ফিরে যাওয়ার সময় হয়েছে। সান ফ্রান্সিসকো বে এরিয়ার অন্তত এক ডজনেরও বেশি এলাকায় রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করা হয়।

গত ২৫ মে মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপলিসে পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড কৃষ্ণাঙ্গ নির্মমভাবে নিহত হন। এই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় বিক্ষোভ। ফ্লয়েডের মৃত্যুর ঘটনায় চার পুলিশ কর্মকর্তাকে তাৎক্ষণিকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। অভিযুক্ত পুলিশ অফিসার দেরেকের বিরুদ্ধে আনা হয়েছে হত্যার অভিযোগ।


এলএ/বাংলা টাইমস/এন/এইচ



বিনোদন


মোদিকে কটাক্ষের অভিযোগে বাংলাদেশি গায়ক নোবেলের বিরুদ্ধে ভারতে মামলা

নিউজ ডেস্ক : ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কটাক্ষ করার অভিযোগে দেশের সমালোচিত কণ্ঠশিল্পী মাইনুল আহসান নোবেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে

বিস্তারিত

রান্নাবান্না


যেভাবে জীবাণুমুক্ত করবেন প্রতিদিনের বাজার

নিউজ ডেস্ক : দৈনন্দিন কিছু বাজার প্রয়োজন হয়। এর মধ্যে শাকসবজি, মাছ-মাংস অন্যতম। আমরা প্রতিদিন যে খাবার খাই তাতে নানা রকমের রাসায়নিক যেমন- কীটনাশক, ফরমালিন

বিস্তারিত


লন্ডন

যুক্তরাজ্যে করোনায় মৃতের গণকবরে সমাহিত করা হতে পারে!

নিউজ ডেস্ক :

ইউনিভার্সিটি অফ হডার্সফিল্ড এর গবেষকদের একটি দলের অভিমত, প্রাণহানীর ঘটনা বৃদ্ধি পেলে তা মোকাবিলায় যুক্তরাজ্যের পরিষেবাগুলি ভালোভাবে প্রস্তুত নয়। তারা বলছেন, করোনাভাইরাসের মহামারীতে (পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে) স্থানীয় কর্তৃপক্ষ মৃতদেরকে গণকবরে কবর দিতে বাধ্য হতে পারে।

তারা পূর্বাভাস দিয়েছেন যে কোভিড-১৯-এ সংক্রামিতদের মধ্যে মৃত্যুর হার যদি এমনকি ১ শতাংশ পর্যন্তও পৌঁছে যায় তবে দাফন সংক্রান্ত পরিষেবাগুলি ব্যাহত হতে পারে। মৃত ব্যক্তির ডেথ সার্টিফিকেট দেয়া, জানাজার পরিষেবা প্রদান এবং এমনকি কবরের স্থান দেওয়ার ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি হতে পারে।

তাদের অভিমত,সীমিত কবরস্থানও একটি বড় সমস্যা হয়ে উঠতে পারে। যার ফলে গণকবরের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছ।

গবেষক ড. জুলিয়া মেটন, ড. আন্না উইলিয়ামস এবং  হেলেন-মেরি ক্রুগার স্বীকার করেছেন যে, এটি 'অত্যন্ত বিতর্কিত বিষয়। এটা অনেক সম্প্রদায়ের মন খারাপ ও ক্রুদ্ধতার বিষয় হবে'। তারা বলছেন,  গণকবরের বিষয়টা ব্যক্তিগত ট্র্যাজেডির বিষয় হয়ে দাড়াবে।

সম্প্রতি বার্মিংহাম বিমানবন্দরের একটি অংশকে কমপক্ষে ১,৫০০ মৃতদেহের জন্য অস্থায়ী কবরস্থানে পরিণত করার কাজ শুরু হয়েছে। এই ঘটনার পর এ ধরনের বিবৃতি আসলো।

এদিকে ওয়েস্ট মিডল্যান্ডস পুলিশ জানিয়েছে, মহামারীর বিস্তার যেহেতু বাড়ছে তাই কবর দেয়ার 'সক্ষমতা সম্প্রসারণের সুযোগ' বাড়াতে হবে।


এম/এইচ/টি

মধ্য প্রাচ্যের খবর

ইরানে সব মসজিদ খুলে দেয়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক : মহামারী করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমে আসায় আজ থেকে ইরানের সব মসজিদ সাময়িকভাবে খুলে দেয়া হচ্ছে। লকডাউন শিথিল করার পরিকল্পনা হিসেবে মঙ্গলবার থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। রমজানের গুরুত্বপূর্ণ তিনটি রাতকে কেন্দ্র করে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।
 
খবরে বলা হয়, ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনী সোমবার দেশটির দায়িত্বশীলদের ডেকে পাঠিয়ে রমজানে কীভাবে ইবাদতের বিষয়টি নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়ে নজর রাখতে বলেন।

এর আগে গত সোমবার থেকে ইরানের ১৩২ শহরে মসজিদসহ অন্য ধর্মীয় স্থাপনা খুলে দেয়া হয়েছিল।

ইরানে এখন পর্যন্ত এক লাখ ১০ হাজারের কাছাকাছি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে এবং সাড়ে ছয় হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন।

দেশটিতে মার্চ মাসে করোনাভাইরাসের মারাত্মক প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর কঠোরভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা জারি করা হয়। অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান ছাড়া অন্য সব দোকান ও শপিংমল বন্ধ করে দেয়া হয়।

আন্তঃনগর পরিবহনব্যবস্থাও বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। তবে গত সপ্তাহ থেকে শহরগুলোর মধ্যে চলাচলের ওপর কড়াকড়ি শিথিল করা হয়েছে এবং শপিংমলগুলো খুলে দেয়া হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এমই

বিজ্ঞাপন

লাইফ স্টাইল


রান্নাঘর ভাইরাসের ঝুঁকিমুক্ত রাখার ১০টি বিশেষ টিপস

নিউজ ডেস্ক : আপনার রান্নাঘর থেকে শুরু করে খাবার টেবিল পর্যন্ত সব স্থান জীবাণুমুক্ত রাখার মাধ্যমেও আপনি আপনার পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারেন।

বিস্তারিত

নামাযের সময়সূচি

জনমত জরিপ


আইটি

জাকারবার্গের নিরাপত্তায় ফেসবুকের ব্যয় ২ কোটি ৩৪ লাখ ডলার

নিউজ ডেস্ক : ফেসবুক তার প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গের নিরাপত্তা খাতে ২০১৯ সালে ব্যয় করেছে ২ কোটি ৩৪ লাখ ডলার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২০০ কোটি টাকা।

সিএনবিসির এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছর জাকারবার্গের ব্যক্তিগত সুরক্ষা নিশ্চিতে কোম্পানিটির এই বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় হয়েছে। এর মধ্যে তাঁর ব্যক্তিগত বিমান ভ্রমণ বাবদ ব্যয় হয়েছে ২৯ লাখ ৫০ হাজার ডলার। ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে জাকারবার্গের নিরাপত্তা ব্যয় বেড়েছে ৩৪ লাখ ডলার।

গত শুক্রবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশনে ফেসবুকের সাবমিট করা একটি ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্ট থেকে জাকারবার্গের এই নিরাপত্তা খরচের বিষয়টি জানা গেছে।

২০১৯ সালে জাকারবার্গের নিরাপত্তাকর্মীদের বেতন, সরঞ্জাম কেনা, নিরাপত্তা সেবা নেওয়া ও বিমান ভ্রমণ বাবদ ২ কোটি ৩৪ লাখ ডলার ব্যয় করা হয়েছে। ২০১৮ সালে এই খাতে ফেসবুকের ব্যয় ছিল ২ কোটি ডলার এবং ২০১৭ সালে ব্যয় ছিল ৯১ লাখ ডলার।

সিএনবিসি বলছে, ২০১৯ সালে জাকারবার্গ এবং তার পরিবারের পেছনে নিরাপত্তা বাবদ ফেসবুকের খরচ হয়েছে ১ কোটি ডলার। ২০১৮ সালে এই ব্যয় ছিল ৯৯ লাখ ৫০ হাজার ডলার এবং ২০১৭ সালে ৭৫ লাখ ডলার।

জাকারবার্গ ফেসবুক থেকে প্রতীকী মাত্র ১ ডলার বেতন নেন। কিন্তু তার পেছনে প্রতিবছর কোম্পানির খরচ কোটি কোটি টাকা। এর কারণ হচ্ছে, মার্ক জাকারবার্গ একাধারে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা, প্রধান নির্বাহী, চেয়ারম্যান এবং সবচেয়ে বেশি শেয়ারের মালিক। এ কারণে তার নিরাপত্তার বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া ফেসবুকের আয়ের পরিমাণও প্রতিবছর বাড়ছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আইসিটি

সুস্থ থাকুন

করোনার নতুন লক্ষণ চোখ লাল হওয়া

নিউজ ডেস্ক : প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে জ্বর, গলা ব্যথা ও শুকনো কাশি দেখা গেলেও এবার এই ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার নতুন এক প্রাথমিক উপসর্গ সামনে এলো।

চোখে করোনা ভাইরাসের নতুন এই লক্ষণ দিতে পারে। যুক্তরাজ্যের একজন চিকিৎসা বিজ্ঞানী জানিয়েছেন, করোনার প্রাথমিক লক্ষণ দেখা দিতে পারে মানুষের চোখে। তবে এটি হতে পারে খুব কম সংখ্যক মানুষের শরীরে।

বলা হচ্ছে, চোখ উঠা বা চোখ রক্তবর্ণের আকার ধারণ করাও হতে পারে করোনার লক্ষণ। এটি হয়তো করোনায় আক্রান্ত হওয়ার একটি সতর্ক বার্তা। তবে এটি অ্যালার্জির কারণেও ঘটতে পারে। এই বিষয়টি প্রমাণ করতে আরও গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা।

যুক্তরাজ্যের ইয়েল মেডিসিনের চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডা. ভিসেন্টে ডিয়াজ বলেছেন, অনেক ভাইরাল অসুস্থতাই চোখকে প্রভাবিত করতে পারে। সাধারণত ফলকুলা কনজেক্টিভাইটিস সৃষ্টি করতে পারে। আমরা জেনেছি যে কভিড-১৯ কম সংখ্যক লোকের চোখের মধ্যে প্রভাব ফেলতে পারে। চোখে করোনার লক্ষণ দেখা দিতে পারে।

আমেরিকান চক্ষুবিজ্ঞান একাডেমি জানিয়েছে, কনজেক্টিভাইটিসও করোনার প্রাথমিক উপসর্গ হতে পারে। কিন্তু এটি খুব কম সংখ্যক রোগীর ক্ষেত্রে দেখা গেছে। তবে মনে রাখতে হবে এটি অ্যালার্জির কারণেও হতে পারে। চলতি মৌসুমে এটি বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এইচ

ফটো গ্যালারি

জনপ্রিয় পত্রিকাসমূহ

কলাম

দুঃসময়ের ঈদ

সামীর রূহানী : সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা রইলো। ঈদ আরবী শব্দ যার অর্থ হচ্ছে খুশি। আজ হয়তো আমাদের অনেকেরই মন ভীষন খারাপ কারণ এবারের ঈদে নতুন জামা কাপড় কসমেটিকস পাঞ্জাবী কিনে বন্ধু বান্ধবী আত্মীয় স্বজন মিলে আনন্দ করতে পারবো না এইজন্য নিশ্চয়ই । অথচ আমরা যদি বিষয়টা বাস্তবিক অর্থে বর্তমান পরিস্থিতির সাথে তুলনা করি তাহলে এই মুহূর্তে আপনি যদি সুস্থ থাকেন কিংবা ঠিকভাবে নিশ্বাস নিতে পারছেন বা আপনার পেটে একবেলা অন্তত খাবার দিতে পারছেন অথবা আপনার পরিবার আপনার সাথে আছে এবং সবাই জীবিত রয়েছেন তাহলে আপনাদের সবার আল্লাহর দরবারে আলহামদূলিল্লহ পড়ে বিশেষ ভাবে শুকরিয়া আদায় করা উচিত। কারণ আপনি এই পৃথিবীর সৌভাগ্যবান মানুষের মাঝে একজন।এখন আপনি যদি আল্লাহ সুবহানাতাআলার এত রহমত অস্বীকার করে এই সামান্য নতুন জামা কাপড় বা ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত হওয়ার জন্য আফসোস করেন তাহলে হয়তো আল্লাহ পাক আপনার প্রতি নারাজ হওয়াটা অসম্ভব কিছুই না।

আমরা হচ্ছি সর্বশ্রেষ্ঠ রাসুল মোহাম্মদ (সা.) এর  উম্মাত। যারা যারা এই মূহুর্তে জীবনের পরোয়া না করে ঈদের না‌মে শপিং করছেন তারা কি বল‌তে পারবেন আমাদের রাসূলে পাক হযরত মোহাম্মদ মোস্তফা (সা.) কয়টা ঈদের নতুন পোষাক প‌রে‌ছেন? ঈদে নতুন জামা পড়াটা কি ফরজ কাজের মাঝে পড়ে ইসলামে ? তাহলে কেনো এত হতাশা আজ আপনাদের মাঝে? আপনারা কি জানেন যে, সারা বিশ্বে প্রায় তিনশো কোটি মানুষের দারিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে পৃথিবীতে যারা তাদের লজ্জা ঢাকার মতন কাপড় পায় না এবং তিন বেলা খাবার পাওয়াটা যেনো আকাশের চাঁদ হাতে পাওয়ার মতন তাদের কাছে? এছাড়া এই একবিংশ শতাব্দীর শুরু থেকে জাতিসংঘ এবং ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী এখনো পর্যন্ত প্রতিদিন গড়ে সারা বিশ্বে প্রায় আট হাজার শিশু মারা যায় শুধুমাত্র ক্ষুধা নামক ভাইরাসের কারণে! না, জানেন না। কারণ ক্ষুধা নামক ভাইরাস ধনীদের কখনো হত্যা করে না। তাছাড়া প্রতিদিন পৃথিবীর অসংখ্য মানুষ কবরে চিরনিন্দ্রায় শায়িত হচ্ছে আর বহু মানুষ হসপিটালে তাদের শেষ নিশ্বাসের প্রহর গুনছে আবার অনেকেই অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে আছে কিন্তু এতকিছু বাদেও আপনি যদি ভালো থাকেন তাহলে বোকার মতন নিজের জীবন নিয়ে এত আফসোস কেনো করছেন? যারা ভালো আছেন সুস্থ স্বাভাবিক আছেন পরিজন পরিজন নিয়ে ভালো আছেন তাদের প্রতিটা দিন আল্লাহর অশেষ রহমতের জন্য শুকরিয়া আদায় করা উচিত। জীবন নিয়ে হতাশা প্রকাশ করে আল্লাহর বিশেষ রহমত থেকে বঞ্চিত হবেন না দয়া করে।

এই ভাইরাসের একটা ভালো দিক কি জানেন আপনারা? এই যে আমরা হিন্দু মুসলিম খ্রিস্টান শিখ ইহুদী বৌদ্ধ আস্তিক নাস্তিক সাদা কালো ধনী গরিব সবাইকে এক কাতারে এনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে এইটা বোঝানোর জন্য যে দিনশেষে আমরা সবাই কিন্তু মানুষ। আমাদের রক্ত শরীরের অঙ্গ প্রত্যঙ্গ সবকিছু অভিন্ন শুধুমাত্র বিশ্বাস ছাড়া।এই বিশ্বাসকে মানুষের জন্য ঐক্যবদ্ধ করতে হবে আমাদের। সবাইকে মানুষ হিসাবে ভালোবাসতে হবে অন্যথায় এই সুন্দর পৃথিবী নষ্ট হয়ে যাবে।
সর্বপ্রথম মানুষকে মানুষ হিসাবে প্রাধান্য দিন, দেখবেন পৃথিবীটা আসলেই অনেক সুন্দর। ভাইরাস কিন্তু সবাইকে মানুষ হিসাবেই আক্রমণ করছে। তবে আমি বিশ্ব নেতাদের কাছে একটা প্রশ্ন রাখতে চাই যে, আপনাদের অর্থনীতি কি আসলেই মানুষের জীবনের চাইতে মূল্যবান? অন্যথায় ভবিষ্যতে পৃথিবীর ইতিহাসে লিখা থাকবে যে পৃথিবীর সংকটময় মূহুর্তে বিশ্ব নেতাদের কাছে তথাকথিত অর্থনীতির সামনে মানুষের জীবন মূল্যহীন বস্তুতে রূপান্তরিত হয়েছিলো। তাই দয়াকরে আপনারা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত লক ডাউন শিথিল করে বিশ্ব অর্থনীতির দোহাই দিয়ে সাধারণ মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিবেন না । এইসব সাধারণ জনতা সারা জীবন রাষ্ট্রকে রাজস্ব ট্যাক্স প্রদান করে। এখন প্রতিটা রাষ্ট্রের এইটা দায়িত্ব এবং কর্তব্য যে তারা নিজ নিজ দেশের জনগণের সেই ঋণ শোধ করবে তাদের অর্থনৈতিক সুরক্ষা প্রদান করে। আর আপনারা সাধারণ মানুষ নিজ নিজ বিশ্বাসের স্থান থেকে ধৈর্য্য ধরে পজিটিভ মাইন্ডেড থাকার চেষ্টা করবেন। এই যুদ্ধটা হচ্ছে আমাদের বেচে থাকার যুদ্ধ । তাই হার মানা যাবে না হতাশ হওয়া যাবে না ।

এদিক থেকে আমি আমার জীবন নিয়ে শত কষ্টের মাঝেও হতাশা খুব একটা প্রকাশ করি না কারণ আমার কাছে লাইফের ফিলোসফি হচ্ছে আল্লাহ কখনো আমাদের দুর্বল করে দেন অধিক শক্তিশালী হবার জন্য । কখনো আল্লাহ হৃদয় ভেঙে চূর্ণ করে দেন আমাদের পরিপূর্ণ করার জন্য । কখনো আল্লাহ আমাদের দুঃখ সইতে দেন অধিক সহনশীল হবার জন্য । কখনো আল্লাহ আমাদের ব্যর্থতা দেন জীবন সংগ্রামে জয়ী হবার জন্য । কখনো আল্লাহ আমাদের একাকিত্ব দেন অধিক সচেতন হবার জন্য । কখনো আল্লাহ আমাদের সর্বস্ব ছিনিয়ে নেন আল্লাহর রহমতের মূল্য বোঝানোর জন্য। তাই সর্বদা মহান আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তাআলা'র শুকরিয়া আদায় করুন। সবাই সুস্থ থাকুন ভালো থাকুন ও একে অপরকে সাহায্য করুন আর মানুষ হয়ে মানুষকে ভালোবাসুন। কারণ একমাত্র মানুষের জন্য মানবতাই এখন এই পৃথিবীকে রক্ষা করতে পারবে । সবাইকে আবারো ঈদের শুভেচ্ছা রইলো । ঈদ মোবারক।

লেখক: অভিনেতা ও সমাজকর্মী

টুকিটাকি খবর

অন্ত মিলন-এর কবিতা

নিউজ ডেস্ক : তোমাকে আমি খনন করতে চাইঅন্ত মিলন

তোমার প্রহেলিকা খনন করে তোমাকে আমি আবিষ্কার করতে চাই।
এই নিশি রাতে তোমাকে আমি খনন করতে চাই।
পরিশেষে আমি তোমার লজ্জায় নত হতে চাই।

এভাবেই চলুক আমাদের প্রণয় যাত্রা
আরো কিছুদিন।
আরো কিছুদিন চলুক তোমার আমার ছেলেখেলা।
হতাহত জোছনা'রা দেখুক আহত সুখ।

ভালোবাসা কখনও বৈধ-অবৈধ বোঝে না,
ভালোবাসা শুধু ভালোবাসা বোঝে।
ভালোবাসার কোনো সমাজ-ধর্ম থাকতে নেই,
থাকতে নেই ভয় !
আমি তোমার ভয়কে খনন করে আমি তোমাকে আবিস্কার করতে চাই।
এই নিশি রাতে আমি তোমার তোমাকে খনন করতে চাই।
পরিশেষে আমি তোমার মাতৃত্বের কাছে নত
হতে চাই;
আমি তোমার কাছে নত হতে চাই !

তারুণ্য

সাতদিনেই আজহারীর তহবিলে ৭১ লাখ টাকা

নিউজ ডেস্ক : মহামারী করোনায় খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষদের সাহায্যের জন্য তহবিল গঠন করেছিলেন আলোচিত ইসলামি বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী।

শুক্রবার (১০ এপ্রিল) তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে ফান্ড গঠনের বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেন তিন। রোববার (১৯ এপ্রিল) তিনি তার পেজে জানিয়েছেন মাত্র সাতদিনে সর্বমোট একাত্তর লাখ পঁচিশ হাজার আটশত একাশি (৭১,২৫,৮৮১) টাকা অনুদান এসেছে।

আজহারীর ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

“রমজান ফুড প্যাক” এর তহবিল সংগ্রহের জন্য আমরা সাত দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলাম। এই সাতদিনে তহবিলে (দুটি ব্যাংক একাউন্ট ও দুটি বিকাশ) সর্বমোট একাত্তর লক্ষ পঁচিশ হাজার আটশত একাশি (৭১,২৫,৮৮১) টাকা অনুদান এসেছে।

প্রাপ্ত অনুদানের মাধ্যমে, সকলের সার্বিক সহযোগিতায়, বাংলাদেশের আটটি বিভাগের সর্বমোট ৩৫টি জেলায়, প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার দরিদ্র পরিবারের হাতে আমরা “রমজান ফুড প্যাক” পৌছেঁ দিচ্ছি। বেশীর ভাগ জেলাগুলোতেই বিতরণ কার্যক্রম শেষ। যে কয়টি জেলা এখনো বাকী আছে সেগুলোও রমাদানের আগেই সম্পন্ন হবে ইনশাআল্লাহ। এই মানবিক উদ্যোগটি বাস্তবায়ন করতে পারায়, আমরা মহান আল্লাহ তায়ালার সুমহান দরবারে মস্তকাবনত চিত্তে শুকরিয়া জ্ঞাপন করছি।

সারা বিশ্ব একই সাথে লকডাউন থাকার কারনে, দেশে বিদেশে অনেক জায়গায় ব্যাংক ও বিকাশ বন্ধ থাকায়, অনেকেই অনুদান পাঠানোর ইচ্ছা থাকা সত্বেও পাঠাতে পারেননি বলে জানিয়েছেন। পাশাপাশি, মাত্র দুটি বিকাশ নাম্বার হওয়ায়, বারবার সেগুলো লিমিট ক্রস করায়, অনেক অনুদান গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি। গত সাত দিন যাবৎ, টানা ২৪ ঘন্টা এই নাম্বার দুটোতে অনবরত ফোন আসায়, সব গুলো ফোন রিসিভ করাও সম্ভব হয়নি। এজন্য আমরা দু:খ প্রকাশ করছি। তবে, আমাদের আন্তরিকতায় কোন ঘাটতি ছিল না। আমরা আমাদের সাধ্যমত চেষ্টা করেছি।

‘রমজান ফুড প্যাক ২০২০’-এর ভিতরে আমরা যা রেখেছি:

* চাল ৫ কেজি
* ডাল ২ কেজি
* আলু ২ কেজি
* পেঁয়াজ ২ কেজি
* তেল ২ কেজি
* ছোলা ১ কেজি
* চিনি ১ কেজি
* লবন ১ কেজি
* মুড়ি ৫০০ গ্রাম
* খেজুর ৫০০ গ্রাম
* ডেটল সাবান ২ টি

লকডাউনের কারণে পন্যের অপর্যাপ্ততায়, কয়েকটি জেলায় আইটেমে সামান্য কিছু কমবেশি হতে পারে। তবে, বেশীরভাগ জেলাতেই হুবহু একই ফুড আইটেম মেনটেইন করা হয়েছে।

আমি দেশে না থাকায়, সরেজমিনে ও স্বশরীরে প্রজেক্টের কাজ পর্যবেক্ষণ করতে না পারলেও, সার্বক্ষণিক কো-অর্ডিনেটরদের সাথে ফোনে ও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সামগ্রিক কার্যক্রম মনিটরিং করেছি এবং প্রয়োজনীয় সকল দিক নির্দেশনা দিয়েছি। আর্থিক সকল হিসাবের পরিপূর্ণ স্বচ্ছতা বজায় রাখতে, পুরো সাত দিনের বিকাশ নাম্বার দুটোর মানি ট্রান্সফার লিস্ট, একাউন্ট দুটোর সাত দিনের ব্যাংক স্টেটমেন্ট, খরচের সকল মানি রিসিপ্ট, ভাউচার, পে-স্লিপ, লজিস্টিক মিসসেলিনিয়াস, ফুড প্যাক প্রাপ্তদের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার ইত্যাদি কালেক্ট করে, ডকুমেন্টারি ফাইল আকারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

“রমজান ফুড প্যাক” প্রজেক্টের সম্মানিত প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটরদ্বয়, জেলা পর্যায়ের কো-কোঅর্ডিনেটরবৃন্দ, সকল টীম মেম্বার এবং সেচ্ছাসেবক ভাই-বোনদের জানাচ্ছি আন্তরিক শুকরিয়া। আপনাদের নিরলস আন্তরিক পরিশ্রমের ফলেই পুরো প্রজেক্টটি সুন্দরভাবে বাস্তবায়িত হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা আপনাদেরকে এর উত্তম প্রতিদান দিক। আর, জাতীয় এ দুর্যোগ কালে বিপদগ্রস্থদের পাশে আর্ত মানবতার সেবায় যারা এগিয়ে এসেছেন, তাদের এই অনুদানকে আল্লাহ তায়ালা আখিরাতের মুক্তির মাধ্যম বানাক। আমিন।

বিভিন্ন জেলায় “রমজান ফুড প্যাক” বিতরণের কিছু খন্ডচিত্র নিচে আপলোড করা হল। ইচ্ছা করেই ফুড প্যাক প্রাপ্ত কারো চেহারা দেখানো হয়নি।

YOUR SUPPORT IS OUR DRIVE.
TOGETHER, WE OVERCOME ALL CRISIS INSHAALLAH.”

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/ওয়াই

মুদ্রাবাজার ও আবহাওয়া

গুরুত্বপূর্ণ লিংক